Saturday, July 11, 2020
Home আওয়ামীলীগ পৌনে ৫ কোটি মানুষ পেয়েছে সরকারি ত্রাণ

পৌনে ৫ কোটি মানুষ পেয়েছে সরকারি ত্রাণ

সমীকরণ প্রতিবেদক-সারা দেশে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস সঙ্কটে মানবিক সহায়তা হিসেবে পৌনে পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষকে ত্রাণ দেওয়ার কথা জানিয়েছে সরকার। শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ৬৪টি জেলা প্রশাসন থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানায়।

এতে বলা হয়, ১৫ মে পর্যন্ত সারা দেশে ত্রাণ হিসেবে এক লাখ ৬২ হাজার ৮১৭ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে এক লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন। এতে উপকারভোগী এক কোটি নয় লাখ ৩৫ হাজার ৭৮৬টি পরিবারের চার কোটি ৮৫ লাখ ২১ হাজার ৬৯১ জন মানুষ।

মন্ত্রণালয় বলছে, ত্রাণ হিসেবে নগদ ৭২ কোটি ৩৩ লাখ ৭২ হাজার ২৬৪ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে বিতরণ করা হয়েছে ৫৫ কোটি ৫৮ লাখ ৭২ হাজার ৮৩৬ টাকা। এছাড়া শিশুদের খাদ্য কিনতে নগদ ১৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হলেও ১৪ কোটি ৩৭ লাখ ৫৬ হাজার ৭২৮ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। নগদ টাকায় উপকারভোগী পরিবার সংখ্যা চার লাখ ৪৭ হাজার ৬৯টি এবং লোক সংখ্যা নয় লাখ ৭৯ হাজার ৪৩৭ জন।

এই কর্মহীনদের পাশরাপাশি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে তাৎক্ষণিক মানবিক সহায়তা হিসেবে বিতরণের জন্য সরকার ধাপে ধাপে নগদ টাকা এবং চাল বরাদ্দ দিচ্ছে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে সরকার গত ২৬ মার্চ থেকে সব অফিস আদালত বন্ধ রেখেছে, আগামী ৩০ মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা আছে। এই সময় গণপরিবহনও বন্ধ থাকা রাখা হয়েছে এবং কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ এড়াতে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে সরকার।

- Advertisment -

সব খরব

চিত্রশিল্পী ডালিয়া সুলতানা সনি করোনাকালে কিভাবে চলছেন তার জীবন গল্প

  সমীকরণ প্রতিবেদক- ডালিয়া সুলতানা সনি  একজন চিত্রশিল্পী। তিনি রাজশাহী ভার্সিটি চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে পড়াশোনা করেছেন । ছোট কাল...

কি করে ভুলবো তোমায় —উৎসর্গ –লিজা

তুমি ভেবেছিলে তুমি জিতে গেছো?আমাকে একা করে রেখে গিয়ে? হঠাৎ যখন ব্যথ্যায় 'মা ' করে...

ঝিনাইদহে করোনায় খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের বোনসহ উপসর্গে তিনজনের মৃত্যু

ঝিনাইদহ অফিস- ঝিনাইদহে দিন যতই যাচ্ছে ততই করোনার আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। মানুষ সচেতন...

‘আমরা চোর ধরে চোর হয়ে যাচ্ছি’ সমীকরণ প্রতিবেদক: ‘টেস্টের জন্য খুব ভালো টেকনিক্যাল লোক দরকার। তাদের রোগীর বাড়িতে যেতে...