Monday, November 30, 2020
Home গল্প চিত্রশিল্পী ডালিয়া সুলতানা সনি করোনাকালে কিভাবে চলছেন তার জীবন গল্প

চিত্রশিল্পী ডালিয়া সুলতানা সনি করোনাকালে কিভাবে চলছেন তার জীবন গল্প

 

সমীকরণ প্রতিবেদক- ডালিয়া সুলতানা সনি  একজন চিত্রশিল্পী। তিনি রাজশাহী ভার্সিটি চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে পড়াশোনা করেছেন । ছোট কাল থেকে তিনি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছে। শিশুকালের অনেকটা সময় সে ঝিনাইদহ শহরে কাটিয়েছি বাবা চাকরি সূত্রে ঝিনাইদহ বসবাস করতেন।

ঝিনাইদহের সরকারি বালিকা বিদ্যালয় ছাত্রী  এবং শিশু একাডেমিতে নিয়মিত ক্লাস করতেন। ওখানে বিভিন্ন স্যারের কাছে বিশেষ করে হালিম স্যারের কাছে তার ছবি আকা চর্চা চলছিল। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন রকম সম্মান প্রাপ্ত হন । ক্লাস নাইনে থাকতে ডালিয়া মানবাধিকার সংস্থার সারাদেশব্যাপী শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় সমগ্র বাংলাদেশের ভিতরে প্রথম স্থান অধিকার করেন।

 তখন থেকে তার ভিতর চারুকলায় পড়াশোনা করার  দৃঢ় বাসনা তৈরি হয়। সেই সূত্র ধরে ডালিয়া একসময় চারুকলাই পড়াশোনা করার জন্য রাজশাহী ভার্সিটিতে ভর্তি হন। বর্তমানে তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। এখানে  আর্ট সার্কেল নামে একটা স্কুল স্থাপন করে যেখানে বাচ্চাদেরকে  বিভিন্ন চিত্রকলা মাধ্যম ও ক্রাফটিং এর সাথে পরিচিত করে দেয়া হয়।

বর্তমানে তার বসুন্ধরা একটি ক্যাম্পাস এবং লেক সিটি তো  ক্লাস রুম রয়েছে। করোনা কালীন সময় দীর্ঘদিন ধরে ডালিয়ার স্কুল বন্ধ আছে । দীর্ঘদিন এই অতি কষ্টে প্রতিষ্ঠিত স্কুল বন্ধ থাকাতে বিভিন্ন‌ সমস্যার মধ্যে পড়ে যায়। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে তার মানসিক চাপ তৈরি হয়। ডালিয়া বুঝে উঠতে পারেনা তার এত কষ্টে তৈরি স্কুল কিভাবে বাঁচিয়ে রাখবে ?

মানসিকভাবে যখন সম্পূর্ণ ভেঙে  পড়ছিলেন তখন তার স্বামী বরাবরের মতোই পাশে এসে দাঁড়ায়। সে বারবার তাকে মনে করে দেয়  একজন শিক্ষক  তার আগেও একটা পরিচয় আছে সে একজন চিত্রশিল্পী।

আর এই সময় তার পুরানো কিছু বন্ধুর সংস্পর্শে আসে এবং তাদের সাথে মিশে, কথা বলে ডালিয়া আবার নিজেকে খুঁজে পাই তার ঝিনাইদহের তার ছোট্ট কালের স্মৃতিতে ফিরে যায় এবং  যে কারণে ডালিয়া মানসিকভাবে নিজেকে খুঁজে পাই আর তার শিল্পচর্চায় নিজেকে অর্পণ করে।

বর্তমানে ডালিয়া সপ্তাহে চারদিন করে অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছেন শুক্র-শনিবার তার একটি ব্যাচ থাকে যা  সন্ধ্যা ছয়টা থেকে শুরু হয় ঠিক তেমনি রবি সোমবারে সে সন্ধ্যা ছয়টা থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু করেন।  এই করোণা কালীন সময় সে  নিজেকে বিভিন্ন সৃজনশীল কাজের মাধ্যমে মানসিকভাবে  সুস্থ রাখতে রাখার জন্য কাজ করে চলেছেন।

এ বিষয়ে ডালিয়া সুলতানা জানান, আমরা প্রত্যেকে জানি শারীরিক সুস্থতার একটি বড় অংশ জুড়ে আছে মানসিক সুস্থতা। আমার ছোট্ট বেলার বন্ধু  পরিচিত সাংবাদিক রাজিব হাসানের এর মাধ্যমে ডালিয়ার কথাগুলো আপনাদের কাছে পৌঁছাতে পেরে নিজেকে খুবই ভাগ্যবান মনে করছি। রাজিব তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

 তিনি আরো বলেন, ২০০০ সালের ব্যাচ সেই ছোট্ট বেলার বন্ধুদের ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে সবাইকে খুজে পেয়ে আমি ভাগ্যবতি মনে করি।


আর বন্ধু লিজার মা না ফেরার দেশে চলে গেছেন। খালাম্মার আত্নার মাগফেরাত কামনা করি। সেই সাথে আপনারা সবাই সাবধানে চলাফেরা করার পাশাপাশি মাস্ক ব্যবহার করবেন।

করোনায় কোন ভয় নয়, সচেতনতায় জয় হবেই।

- Advertisment -

সব খরব

মাদক সেবনের দায়ে কুষ্টিয়ার ৮ পুলিশ চাকরিচ্যুত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত আট পুলিশ সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।এদের...

প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্বীকৃতি ও এমপিও ভুক্তিসহ ১১ দফা দাবিতে ঝিনাইদহে মানববন্ধন

সাজ্জাতুল জুম্মা, ঝিনাইদহ অফিস- প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্বীকৃতি ও এমপিও ভুক্তিসহ ১১ দফা দাবিতে ঝিনাইদহে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।...

পেঁয়াজ নিয়ে গভীর রাজনীতি আছে কিনা সে উত্তর দিতে পারবো না

আমি বাণিজ্যমন্ত্রী, বাণিজ্য বুঝি। পেঁয়াজ নিয়ে পিছনে কোনো গভীর রাজনীতি আছে কিনা সে উত্তর আমি দিতে পারবো না। প্রথমবারের...

মসজিদের বাইরে গ্যাসলাইনে ৬টি লিকেজ পেয়েছে তদন্ত কমিটি

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের তল্লায় বিস্ফোরণের ঘটনায় মসজিদের বাইরে গ্যাসলাইনের ছয়টি লিকেজ পেয়েছে তিতাসের তদন্ত কমিটি। এছাড়া মসজিদ নির্মাণে...